সেলিম ক্ষমতার অপব্যবহার করে সরকারি আনুগত্যে ফাঁকি

জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগের মেডিকেল অ্যাসিস্ট্যান্ট (সাকমো) সেলিম রেজা তার স্বীয় এলাকার দাপট-পেশীশক্তি সমেত রাজনৈতিক ক্ষমতার অপব্যবহার করে সরকারি আনুগত্যকে ফাঁকি দিয়ে যাচ্ছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি উর্ধতন অফিসারের কাছে জবাব দেয়ার কথা বলে এড়িয়ে যান।

জানা যায়, জেলার গুরুত্বপূর্ণ একটি উপজেলার নাম সরিষাবাড়ী। উপজেলাটির পূর্বে ধনবাড়ি, পশ্চিমে কাজিপুর, উত্তরে মাদারগঞ্জ ও দক্ষিণে টাঙ্গাইল জেলার সীমান্তবর্তী এলাকার লোকজনসহ উপজেলার হাজার হাজার মানুষ সরিষাবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রতিনিয়ত সেবা নিয়ে থাকেন। অথচ গত দুই-তিন মাস যাবৎ সেলিম রেজা তার পারিবারিক জমি সংক্রান্ত বিষয়ে গ্রামের বাড়ীতে দেনদরবার করতে গিয়ে সরকারি প্রটোকল মতে ছুটি ছাড়াও অহরহ বার বিনা ছুটিতে সরকারি আনুগত্যকে ফাঁকি দিয়ে যাচ্ছে। অতঃপর যদিও কখোনো তিনি (সেলিম) জরুরী বিভাগে দায়িত্বরত অবস্থায় থাকে, সেখান হতেও তিনি দায়িত্ব এড়িয়ে ধুমপানরত অবস্থায় চা-সিগারেটের দোকানেই দেখা যাচ্ছে বেশীর ভাগ সময়। বিষয়টি নিয়ে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের মাঝে তৈরি হয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া। তাহার (সেলিম) জরুরী বিভাগে দায়িত্বকালীন সময়ে বেশীর ভাগ সময়ই বাহিরে থাকা ও আগমন-প্রস্থানের অবহেলার বিষয়ে এলাকার সচেতন মহল মুখ খুললে উল্টু চরমভাবে লাঞ্ছিত হতে হয় তাদের। এবিষয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে বার বার জানিয়েও কোনো সুরাহা মেলেনি।

তাছাড়াও, মেডিকেল এসিস্ট্যান্ট সেলিম রেজা জরুরী বিভাগে সরকারী আনুগত্যের ব্যত্বয় সহিত আগমন, প্রস্থানের অনিয়মের বিষয়ে আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ সাহেদুর রহমান সাহেদকে অভিযোগ করলে তিনি উল্টো অভিযোগকারীকে প্রশ্নবিদ্ধ করেন এবং বলেন আপনি যা পারেন করে দেখান!!

এমন সরকারি আনুগত্য ফাঁকির বিষয়ে সেলিম রেজার কাছে বক্তব্য জানতে চাইলে তিনি বলেন, বক্তব্য দিতে হলে আমার উর্ধতন অফিসারের কাছে দিবো আপনাকে নয়।

অতঃপর সাহেদুর রহমান সাহেদের এমন রূঢ়তা এবং সেলিমের বিষয়ে জামালপুর সিভিল সার্জন প্রণয় কান্তি দাসের কাছে জানতে চাওয়ার জন্য মুঠোফোনে কল করলে তাকে পাওয়া যায়নি।

"স্বাধীনতার মহান স্থপতির এক (০১) আদর্শের" তত্ত্বীয় গবেষণাগার কর্তৃক সত্য প্রকাশে বিশ্বস্ত একটি অনলাইন পোর্টাল 'দৈনিক তরঙ্গ বার্তা'