নৌকা পেতে প্রার্থীরা ঢাকায় ক্ষেতে কাজ করছেন যুবলীগ নেতা

যমুনা, ঝিনাই, সুবর্ণখালী নদী বিধৌত ‘প্রাচ্যের ড্যান্ডি’ খ্যাত সরিষাবাড়ী উপজেলা জামালপুর জেলার মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। কোটিপতি বানানোর মেশিন’ হিসেবে পরিচিত দেশের বৃহৎ ও একমাত্র দানাদার ইউরিয়া উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান যমুনা সার কারখানা এ উপজেলায় অবস্থিত হওয়ায় জেলার অর্থনীতি ও রাজনীতির কেন্দ্রবিন্দু এই উপজেলা।
উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে আগামী ২৩ ডিসেম্বর চতুর্থ ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন। নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী অর্ধশতাধিক। “সোনার হরিণ” নৌকা পেতে সবাই হাইকমান্ডে দৌঁড়ঝাপ চালালেও মাঠপর্যায়ে গত কয়েকদিন ধরে গণসংযোগ বা জনসম্পৃক্ততা নেই অধিকাংশ মনোনয়ন প্রত্যাশীর। আজ-কাল ঘোষণা হতে পারে দলীয় প্রার্থীদের নাম—তাই অধিকাংশ প্রার্থীরা এখন ঢাকায় অবস্থান করছেন।
তবে ব্যতিক্রম দেখা গেল ৭নং কামরাবাদ ইউনিয়নের মনোনয়ন প্রত্যাশী উপজেলা যুবলীগের সভাপতি এ কে এম আশরাফুল ইসলামের বেলায়। সবাই যখন নৌকার মনোনয়ন পেতে টানা কয়েকদিন ধরে ঢাকায় অবস্থান করে লবিং চালাচ্ছেন, ঠিক তখনও নিজের জমিতে ফসল ফলাতে ব্যস্ত ব্যতিক্রমী এই প্রার্থী। রবিবার (২১ নভেম্বর) দুপুরে ব্যতিক্রম এ চিত্র দেখা গেছে।
সূত্র জানায়, ৭নং কামরাবাদ ইউনিয়নে নৌকার মনোনয়ন চেয়েছেন ১০ জন। এরমধ্যে উপজেলা যুবলীগের সভাপতি এ কে এম আশরাফুল ইসলাম দলের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব ও ক্ষমতার খুব কাছাকাছি থাকলেও নিজের আয় বলতে পুরোপুরি কৃষিকাজের ওপর নির্ভরশীল। কিশোর বয়স থেকেই বঙ্গবন্ধুর আদর্শের রাজনীতিতে তিনি জড়িত। দিনের অধিকাংশ সময় তার ব্যয় হয় দলীয় ও সামাজিক কাজে। বাকী সময় মনোযোগ দেন নিজের কৃষি খামারে। ভোরে ঘুম থেকে জেগেই লেগে পড়েন নিজহাতে গরু-ছাগল প্রতিপালন ও ক্ষেতে বীজ-সার-কীটনাশক ছিটানোসহ চাষাবাদে। এলাকায় তিনি আদর্শ কৃষক হিসেবেও পরিচিত।
এ সম্পর্কে এ কে এম আশরাফুল ইসলাম জাগো নিউজকে জানান, আমি কৃষক পরিবারের সন্তান। আমি মানুষের জন্য কাজ করি, দলের জন্য কাজ করি, সবশেষে পরিবারের জন্য কাজ করি। আমার দায়িত্ব দলের জন্য কাজ করা, মনোনয়নের জন্য ঢাকায় বসে থেকে কী করবো! দল যদি আমাকে যোগ্য মনে করে, তবেই আমি মনোনয়ন পাবো, কিন্তু লবিংয়ের নামে বাড়তি দৌঁড়ঝাপ করে দলের শৃঙ্খলা বিনষ্ট যাতে না হয়—সেটা সবসময় আমি মনে রাখি।
তিনি আরো জানান, সারাজীবন বঙ্গবন্ধুর আদর্শের রাজনীতি করেছি, মনোনয়ন নিয়ে আমি মোটেও চিন্তিত নই। দল যাকে যোগ্য মনে করবে তিনি দলের মনোনয়ন পাবে। আমি মনোনয়ন বঞ্চিত হলেও দল যাকে মনোনয়ন দেবে তার পক্ষেই কাজ করবো।
জানা গেছে, আগামী ২৫ নভেম্বর রিটার্নিং অফিসারের কাছে মনোনয়নপত্র জমার শেষদিন। দলীয় সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে আজ মনোনয়ন বোর্ডের সভা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। যেকোনো সময় ময়মনসিংহ বিভাগের প্রার্থীদের নাম ঘোষণা হবে। তৃণমূলের দাবী, তুলনামূলক সজ্জন, ত্যাগী ও জনবান্ধব নেতাদের হাতেই তুলে দেয়া হোক মনোনয়ন।
"স্বাধীনতার মহান স্থপতির এক (০১) আদর্শের" তত্ত্বীয় গবেষণাগার কর্তৃক সত্য প্রকাশে বিশ্বস্ত একটি অনলাইন পোর্টাল 'দৈনিক তরঙ্গ বার্তা'