জামিনে এসে ধর্ষণ মামলার আসামি সাংবাদিক’কে হুমকি

ছবিঃ মোখলেছুর রহমান মঞ্জু (ধর্ষণ মামলায় গ্রেফতারের সময়)

 

জামালপুরের ইসলামপুরে ধর্ষণ মামলার আসামি কর্তৃক ইসলামপুর প্রেসক্লাবের সহ-সাধারণ সম্পাদক ইয়ামিন মিয়া প্রাণনাশের হুমকির শিকার। এ ঘটনায় শুক্রবার (১০ সেপ্টেম্বর) বিকালে ডিগ্রিচরতদন্ত কেন্দ্রে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন সাংবাদিক ইয়ামিন মিয়া।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত বছরের ১২ আগস্ট শিশু ধর্ষণ মামলায় মোখলেছুর রহমান মুঞ্জুকে (৩০) গ্রেপ্তার করে ডিগ্রীর চর তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ। তিন চার মাস কারাভোগের পর জামিনে এসে সে আরও বেপরোয়া হয়ে উঠে। নানা অনিয়ম এবং দূর্নীতির সাথে জড়িয়ে পড়ে। চেয়ারম্যানের মামাতো ভাই হওয়ায় ভয়ে কেউ কিছু বলতে সাহস করতো না।

সাম্প্রতিক চরগোয়ালিনী ইউপি চেয়ারম্যান মো. শহিদুল্ল্যাহর বিভিন্ন অনিয়মের নিউজ সাংবাদিক ইয়ামিন মিয়া বৃহস্পতিবার (৯ সেপ্টেম্বর) তার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট করেন। এতেই ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন মোঃ মঞ্জু মিয়া। তিনি ইয়ামিন মিয়ার সেই ফেসবুকের পোস্টকে কেন্দ্র করে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন। এর পর থেকে ইয়ামিন মিয়াকে হামলা মামলা প্রাণনাশসহ বিভিন্ন ধরনের হুমকি দেন। এ নিয়ে ইয়ামিন মিয়া নিরাপত্তাহীনাতায় ভুগছেন।

সাংবাদিক ইয়ামিন মিয়া জানান, উপজেলার চরগোয়ালিনী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. শহিদুল্ল্যাহর বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধরনের অনিয়ম দুর্নীতি সংক্রান্ত নিউজ করায় চেয়ারম্যানের মামাতো ভাই মোখলেছুর রহমান মঞ্জু মিয়াকে দিয়ে আমাকে প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছেন এবং বিভিন্ন ফেইক ফেসবুক আইডি দিয়ে আমার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মিথ্যা তথ্য রটানো হচ্ছে। যা আমার মান সম্মান ক্ষুন্ন হচ্ছে।

তিনি আরও জানান, মো. মুখলেছুর রহমান মঞ্জু মিয়া চরগোয়ালিনী ইউপি চেয়ারম্যান মো. শহিদুল্ল্যাহর মামাতো ভাই ও তার ডান হাত। ভাইয়ের মদদে এলাকায় সে নানা অপকর্ম পরিচালনা করে থাকে।

ইসলামপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক হাফিজ লিটন ঘটনাটির তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, সোশ্যাল মিডিয়াতে বা এভাবে আমার সাংবাদিক ভাইদের হুমকি দিবে এটা কোন ভাবেই আশা করি নাই। অতিশীঘ্রই তদন্তের সাপেক্ষে দোষী ব্যাক্তিকে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হোক এই দাবি করছি প্রশাসনের নিকট।

তবে এ বিষয়ে চরগোয়ালিনী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শহিদুল্ল্যাহর সাথে মুঠোফোনে একাধিক বার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তাকে পাওয়া যায়নি।

তবে অভিযুক্ত মো. মোখলেছুর রহমান মঞ্জু মিয়া জানান, আমার অতিতের ছবি নিয়ে ফেসবুকে পোস্ট করায় রাগান্ত্বিত হয়ে তার ওই পোস্টে গালিগালাজের কমেন্ট করেছি। এটা আমার অপরাধ হয়েছে। আমি খুবই কষ্ট পেয়েছি ওই পোস্ট করাই।

ডিগ্রিরচর তদন্তকেন্দ্রের ইনচার্জ আব্দুল বারী জানান, লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া নেয়া হবে।

"স্বাধীনতার মহান স্থপতির এক (০১) আদর্শের" তত্ত্বীয় গবেষণাগার কর্তৃক সত্য প্রকাশে বিশ্বস্ত একটি অনলাইন পোর্টাল 'দৈনিক তরঙ্গ বার্তা'