সরিষাবাড়ীতে কামরুল হাসানের রোষানলের স্বীকার ঔষধ দোকানদারগণ

জালালপুরের সরিষাবাড়ীতে আরামনগর বাজার শিমলা বাজার সহ উপজেলাটির প্রত্যন্ত এলাকার ঔষধ দোকানদারগণ সরিষাবাড়ী কেমিস্ট এবং ড্রাগিস্ট সমিতির সাধারণ সম্পাদক কামরুল হাসানের রোষানলের স্বীকারে পতিত হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

জানা-যায় গত মঙ্গলবার সরিষাবাড়ীতে জামালপুর ড্রাগ সুপার গৌরী বালা বসাক তার নেতৃত্বে অভিযান কালে চারটি দোকানে ড্রাগলাইসেন্স না থাকার হেতুতে তিনটি দোকানকে তিন হাজার টাকা ও একটি দোকানে লাইসেন্স বিহীন সেক্সচুয়াল ঔষধ থাকার দায়ে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

করোনাকালীন সময়ে ঔষধ দোকানদারের ব্যবসায় টানাপোড়েনে অর্থনৈতিক সংকটের জন্য মানুষিক অবস্থার বিপর্যয় ঘটে। এমতাবস্থায় তাদের (দোকানদার) কেমিস্ট সমিতির সাধারণ সম্পাদক কামরুলের সহ মর্মিতা বা সমবেদনা না পাওয়ায় তারা (ঔষধ দোকানদারগণ) হতাশগ্রস্থতার সন্ধিক্ষণে তাদের দৃষ্টি গোছর হয় তার (কামরুল হাসান) ফেইসবুক আইডিতে কোন ঔষধ দোকানদারকে কত টাকা জরিমানা করলেন ভ্রাম্যমান আদালত তা স্ট্যাটাস দেয়। অতঃপর তারা (ঔষধ দোকানদার) উদ্বেগে উদ্বেলিত হয়ে প্রতিবাদের ভাষায় বলেন, যেহেতু আমরা কেমিস্ট আর যারা এই কেমিস্ট পর্ষদের নেতৃত্ব দিচ্ছেন তারাও কেমিস্ট; তাহলে তাদের ঐখানেও ড্রাগ সুপার সমেত ভ্রাম্যমান আদালত কর্তৃক অভিযান হওয়াটা আমরা সমীচীন বলে মনে করছি। এমন আলোকপাতে এই প্রতিবেদক একটি স্ট্যাটাস তার ফেইসবুক আইডিতে আপলোড করেন। সেই স্ট্যাটাসে বলা হয় যে, ‘সরিষবাড়ীতে কেমিস্ট পর্ষদের নেতৃত্বস্থানীয়দের ঔষধের দোকানে অদ্যবধি দেখা যায়নি ড্রাগ সুপার কর্তৃক অভিযান! তাহলে কি তারা আইনের উর্ধ্বে? এমন স্ট্যাটাস দেখতে পেয়ে কামরুল হাসান গত বুধবার (২৬/০৫/২০২১ ইং) সন্ধ্যা ৬.০২ মিনিটে ০১৭৫২-৩০৭৯৫২ এই নাম্বার হতে তাঁর (সংবাদকর্মী) ফোন নাম্বারে কল দেন এবং আগ্রাসী ভূমিকায় বলেন, এক ঘন্টার মধ্যে যদি স্ট্যাটাসটি তুই রিমুভ না করিস তাহলে আমি তোকে দেখে নেবো বলে সংযোগটি বিচ্ছিন্ন করেন’।

এ বিষয়ে সরিষাবাড়ী থানার ওসি তদন্ত রাশেদুল হাসানের নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন,’ এমন হুমকি অবশ্যই আইন বহির্ভূত। তবে এখনও পর্যন্ত ভুক্তভোগী কর্তৃক আমরা কোন ধরনের অভিযোগ পায়নি, অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা গ্রহণ করবো’

"স্বাধীনতার মহান স্থপতির এক (০১) আদর্শের" তত্ত্বীয় গবেষণাগার কর্তৃক সত্য প্রকাশে বিশ্বস্ত একটি অনলাইন পোর্টাল 'দৈনিক তরঙ্গ বার্তা'