ধর্ষীতা শিশুর আলামত নষ্টে এ কেমন বর্বরতা

ঘটনায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে এলাকাজুড়ে

চল্লিশ উর্ধ্ব এক ব্যক্তির লালসার শিকার হয়ে ‘ধর্ষীতা এক শিশুর পেটে শিশু জন্ম’ অবিশ্বাস্য হলেও এমন একটি ঘটনা জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলার পিংনা ইউনিয়নের বাসুরিয়া গ্রামের সাধারণ লোকজনের মাঝে এক ধরনের চাঞ্চল্য সৃষ্টি করেছে । তবে মূল ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে এলাকার একটি প্রভাবশালী মহলের ভয়ে পরিবার কর্তৃক গত ০৮.০৫.২০২১ ইং তারিখে টাঙ্গাইল জেলার ভূঞাপুরে সোনিয়া নামক প্রাইভেট হসপিটালে সিজার করে শিশুটিকে ঠেলে দেয়া হয়েছে মৃত্যুর মুখে।

রবিবার (১৬ মে) দুপুরে সরোজমিনে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, পাশের গ্রামে শিশুকন্যা সাবিনা (ছদ্মনাম) ও এক পুত্র সন্তান নিয়ে একটি ছাপড়া ঘরে বসবাস করছেন এক অসহায় মা। পাশেই বাসুরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণীতে পড়াশোনা করছেন সাবিনা (ছদ্মনাম)। বাবা তারেক মিয়া (ছদ্মনাম) দ্বিতীয় বিবাহ করে ঢাকায় বসবাস করেন তবে এবার ঈদের ছুটিতে বাড়িতে এসেছেন বলে পরিবার সূত্রে জানা যায়। যে-বয়সে শিশুটি হেসে খেলে বড় হওয়ার কথা; খেলার সাথীদের সাথে ঈদ উদযাপন করার কথা অথচ সেই বয়সে বিছানায় শুয়ে কাতরাচ্ছেন সিজার পরবর্তী ব্যথায়। কথা বলতে হাত পা কাঁপছে অজানা এক আতঙ্কে, তারপরও বলল পাশের বাড়ীর সুরুজ (৪৫) নামক এক ব্যক্তি আমার এই সর্বনাশ করেছে। ভুক্তভোগী শিশুটির সাথে কথা বলতে বলতে ইতিমধ্যে অনেক লোকের সমাগম হয় বাড়ীতে, কেউবা আবার উঁকিঝুঁকি মারতে থাকে বাড়িটির বিভিন্ন কোনা হতে। প্রভাবশালীদের ভয়ে আশেপাশের লোকজন প্রথমে ভয়ে মুখ খুলতে রাজি না হলেও পরবর্তীতে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে দোষীকে আইনের আওতায় আনার দাবি করেন। কেউ কেউ ঘটনার এতোদিন অতিবাহিত হলেও দোষী ব্যক্তি আইনের আওতায় না আসায় হতাশা ব্যক্ত করেন।

এ বিষয়ে জানতে চেয়েছিলাম স্থানীয় মাতব্বর রশিদ মিয়ার নিকট, এলাকাবাসীর ভাষ্যমতে তিনি এ বিষয়ে পূর্ব হতেই অবগত, ‘তিনি বললেন শিশুটি ধর্ষণ হয়েছে বিষয়টি আমি কেন এলাকার সকলে অবগত, তবে সিজার হয়েছে কিনা সে বিষয়ে আমি জানিনা তবে শুনেছি মামলাও নাকি হয়েছে’।

ঘটনা বিষয়ে মুঠোফোনে জানতে চেয়েছিলাম বাসুরিয়া স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা সানজিদা জাহান লিখনের নিকট, তিনি বলেন, ‘হ্যাঁ সাবিনা (ছদ্মনাম) আমার বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণীতে লেখাপড়া করেছে করোনাকালীন বিদ্যালয় বন্ধ থাকার থাকায় ঘটনা সম্পর্কে আমি অবগত নই। তবে যে বা যাহারা এ ঘটনার সাথে জড়িত তাদের কঠিন শাস্তির দাবি করছি’।

এ বিষয়ে আরও জানতে চেয়েছিলাম সরিষাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মীর রকিবুল হক রকিবের নিকট, তিনি বলেন,’ বিষয়টি আমি অবগত নই, ভুক্তভোগীদের নিকট থেকে যদি লিখিত আকারে অভিযোগ পাই তবে অবশ্যই আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবো’।

"স্বাধীনতার মহান স্থপতির এক (০১) আদর্শের" তত্ত্বীয় গবেষণাগার কর্তৃক সত্য প্রকাশে বিশ্বস্ত একটি অনলাইন পোর্টাল 'দৈনিক তরঙ্গ বার্তা'