নিম্নমানের সারের কারনে ১৯ জেলায় যমুনা সার সরবরাহ বন্ধ

জানা যায় পঁচা-গলা ও জমাট বাঁধা সার নিতে অনিহা প্রকাশ করে সার সরবরাহ বন্ধ রেখেছে ডিলাররা

নিম্ন মানের সার সরবরাহের কারনে ১৯ জেলায় জামালপুরের সরিষাবাড়ীর তারাকান্দিতে অবস্থিত যমুনা সার কারখানার সার সরবরাহ বন্ধ রয়েছে।

বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর) থেকে সার কারখানার আমদানি করা পচা-গলা ও জমাট বাঁধা সার নিতে অনিহা প্রকাশ করে সার সরবরাহ বন্ধ রেখেছে ডিলাররা।

ডিলার ও জেএফসিএল সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, যমুনা সার কারখানা থেকে ১হাজার ৯শ ডিলারের মাধ্যমে ১৯ জেলায় সার সরবরাহ করে আসছে। কারখানা থেকে ডিলারদের বরাদ্ধের প্রতি ট্রাকে ১২ মে:টন সারের মধ্যে ১০ মে:টন যমুনা সার কারখানার উৎপাদিত সার এবং ২ মে:টন আমদানি করা সার সরবরাহ দিয়ে আসছিল। ডিলারগণ আমদানি করা ২ মে:টন সার পচাগলা ও জমাট বাঁধা আখ্যা দিয়ে ঐ সার সরবরাহ নিতে অনিহা প্রকাশ করে ৪ দিন ধরে সার সরবরাহ বন্ধ রেখেছে। সার কারখানায় ২৬ সেপ্টেম্বর শনিবার পর্যন্ত মোট ৮৫ হাজার মে:টন সারের মধ্যে আমদানি করা ৩৩ হাজার মে:টন সার মজুদ রয়েছে।

এ ব্যাপারে ড্রাইভার রফিকুল ইসলাম জানান,কারখানা থেকে আমদানি করা সার নিয়ে গেলে ডিলারগন ট্রাক থেকে সার নামাতে দেয় না এবং ভাড়াও দিতে চায় না। এজন্য ডিলারগন আমদানি করা সার না নেয়ায় ৪দিন ধরে সার পরিবহন বন্ধ রয়েছে। আমরা বিপাকে আছি।

সার ডিলার আলী আকবর জানান, জেএফসিএল কর্তৃপক্ষের সাথে দফায় দফায় আমদানি করা পঁচা-গলা ও জমাট বাঁধা সার সরবরাহ অনিহা প্রকাশ করার সত্বেও আমাদের ওপর আমদানি করা ২ মে:টন সার চাপিয়ে দিয়েছে।ওই সার কৃষক ক্রয় করতে মোটেও রাজি নয়। তাই আমরা সার কারখানার সার সরবরাহ বন্ধ রেখেছি।

এ ব্যাপারে সার কারখানার ব্যবস্থাপক বাণিজ্যিক ওয়ায়েছুর রহমান জানান, ডিলারগণ আমদানি করা সার নিতে অনিহা প্রকাশ করে কারখানা থেকে সার সরবরাহ বন্ধ রেখেছে।

"স্বাধীনতার মহান স্থপতির এক (০১) আদর্শের" তত্ত্বীয় গবেষণাগার কর্তৃক সত্য প্রকাশে বিশ্বস্ত একটি অনলাইন পোর্টাল 'দৈনিক তরঙ্গ বার্তা'