সরিষাবাড়ীতে শিশুয়া খালের উপর গ্রামবাসীর অর্থায়নে নির্মিত হচ্ছে কাঠের ব্রিজ

কথায় আছে “সবে মিলে করি কাজ হারি যেতে নাহি লাজ”এই প্রতিপাদ্যকে হৃদয়ে লালন করে জামালপুরে সরিষাবাড়ী উপজেলার পাশাপাশিস্থ ২টি ইউনিয়নের ৪টি গ্রামের কয়েক হাজার মানুষ একাত্মতা পোষণ  করে শিশুয়া খালের উপর নির্মাণ করছে নিজস্ব অর্থায়নে কাঠের ব্রিজ। যার নির্মাণ ব্যয় ধরা হয়েছে প্রায় ২লক্ষ টাকা। অনেকেই স্বেচ্ছায় বিনাশ্রম দিচ্ছেন বলেও জানা যায়।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, শিশুয়া ব্রিজের উত্তর পশ্চিম পার্শ্বে মাদারগঞ্জ কয়ড়াগামী সড়কের পাশ দিয়ে ঝিনাই নদীমুখী বয়ে যাওয়া ছোট্ট খালটি কষ্টের নদী হয়ে দাঁড়িয়েছে এলাকাবাসীর চলার পথে। দীর্ঘ ২০/২৫ বছর যাবৎ এ অঞ্চলের লোকজন অপেক্ষা করছিল সরকারি অনুদানে হয়তো এই ব্রিজটি নির্মাণ হবে। কিন্তু তাদের স্বপ্ন আজও বাস্তবায়িত হয়নি। তাই তাঁরা নিরুপায় হয়ে, অবশেষে নিজ উদ্যোগে নিজস্ব অর্থায়নে নির্মাণ করছেন এই কাঠের ব্রিজ। এমন কথাই জানালেন ব্রিজ নির্মাণে বিনাশ্রমকারী কর্মী আব্দুল মালেক। তিনি আরও বলেন, এই রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন ৪টি গ্রামের মানুুষ চলাফেরা করে। আমাদের কৃষিজ শস্যাদি শহরে নিতে, ছেলেমেয়েদের স্কুল কলেজে যেতে, অসুস্থ রোগীকে জরুরী চিকিৎসা দিতে নানানবিধ সমস্যার সম্মুখীন হই আমরা প্রতিদিন।

এদিকে কাঠের সেতু নির্মাণে একজন স্বেচ্ছাসেবী ও অর্থদাতা বলেন এই অঞ্চলটি হল ২টি ইউনিয়নের মিত্রস্থল। এখানে চর হেলাঞ্চাবাড়ী, শুয়াকৈরের দক্ষিণাংশ, চর শিশুয়া ও ছাতারিয়া গ্রামের কিছুসংখ্যক লোকজন বসবাস করে। এবারের বন্যায় শুয়াকৈর ব্রীজটি ভেঙ্গে যাওয়ায় এ চরাঞ্চলে মানুষগুলো আরও বেশি বিপাকে পড়েছে। তাই মানবিক লক্ষ্যে আমি নিজেও শ্রম ও অর্থ দিয়ে সহযোগিতা করছি।

"স্বাধীনতার মহান স্থপতির এক (০১) আদর্শের" তত্ত্বীয় গবেষণাগার কর্তৃক সত্য প্রকাশে বিশ্বস্ত একটি অনলাইন পোর্টাল 'দৈনিক তরঙ্গ বার্তা'