সরিষাবাড়ীতে অবাধে চলছে ট্রাক্টর, গাড়ির রেজিস্ট্রেশন ও চালকের নেই লাইসেন্স

প্রতিবাদ করতে গেলে দেখানো হচ্ছে ক্ষমতার দাপট

জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলায় শহর তথা প্রতিটি ইউনিয়নের সড়কে প্রতিদিন অবাধে বিচরণ করছে শতাধিক ছয়চাঁকা বিশিষ্ট ট্রাক্টর। যদিও এসব ট্রাক্টর সড়কে চলাচলের কোন বৈধতা বা অনুমিত নেই প্রশাসনের। তবুও নেয়া হচ্ছে না প্রশাসনিক কোন ব্যবস্থা।

সরেজমিনে খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে, ভারত হতে আমদানিকৃত মাহেন্দ্রা ও টাটা কোম্পানির ছয়চাঁকা বিশিষ্ট ট্রাক্টরগুলো কৃষিজ কাজে ব্যবহার করার অনুমিত থাকলেও ব্যবহার হচ্ছে মালবাহী কাজে সড়কে। বিশেষ করে ব্যাঙের ছাতার মত গজিয়ে উঠা ইটভাটা ও মাটি ব্যবসায়ীদের শক্তিশালী সিন্ডিকেট চক্রের ব্যক্তিরা নিয়ন্ত্রণ করছে এই ট্রাক্টরগুলো। এসব ট্রাক্টরের না আছে রোড় পারমিট তথা রেজিস্টেশন, না আছে চালকের ড্রাইভিং লাইসেন্স। চালকদের বেশিরভাগই দেখা গেছে অপ্রাপ্ত বয়সী এবং তাদের বেপরোয়া ড্রাইভিং এর হেতুতে প্রায়ই দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে পথযাত্রীসহ অটোরিকশা, অটোভ্যান ইত্যাদি।

জানা যায়, রবিবার (৬ সেপ্টেম্বর) সাড়ে ১২ টার দিকে পোগলদিঘা ইউনিয়নের একুশে মোড় হতে মাজালিয়ার দিকে যাচ্ছিল একটি যাত্রীবাহী অটোরিকশা আর মাজালিয়া হতে বেপরোয়া গতিতে আসতেছিলো একটি ট্রাক্টর। বলতে গেলে অটোরিকশার চালকসহ ছয়জন যাত্রীই অলৌকিক ভাবে বেঁচে যায় দুর্ঘটনা হাত থেকে। এই বিস্ময়কর পরিস্থিতি দেখে মজিবরের মোড়ে থাকা প্রত্যক্ষদর্শীরা ট্রাক্টরের ড্রাইভারকে সাবধান করতে গেলে সে উল্টো উত্তেজিত হয়ে জনতাকে বলে আপনারা কি জানেন এটি কার ট্রাক্টর, মামুন ফকিরের ট্রাক্টর। এমন কথা বলে সে তার গতিতেই আবার চলে যায় বলে জানান উপস্থিতি জনতা। এদিকে ট্রাক্টরগুলো সড়কে চলাচলের দরুন রাস্তাঘাটগুলোও খানাখন্দ হয়ে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ছে বলে বিভিন্ন এলাকাবাসী জানান এবং নানান দুর্ঘটনাও প্রায়ই ঘটাছে বলে অভিযোগের অন্তঃ নেই। এদিকে রোড় পারমিট না থাকার পরেও কিভাবে গাড়িগুলো সড়কে চলে এমন তথ্য খোঁজতে কয়েকজন ট্রাক্টর ড্রাইভারকে জিজ্ঞেস করলে তারা বলেন স্থানীয় প্রশাসনকে ম্যানেজ করেই তাঁরা সড়কে গাড়ি চালান। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক শর্তে কয়েকজন চালক ও মালিক তরঙ্গ বার্তাকে জানান, ১৩/১৪ লাখ টাকা দামের গাড়ি সড়কে চলাচলের অনুমিত না থাকায় প্রশাসনিক ঝামেলা মিটিয়েই চালাতে হয় তাদের গাড়ি।

"স্বাধীনতার মহান স্থপতির এক (০১) আদর্শের" তত্ত্বীয় গবেষণাগার কর্তৃক সত্য প্রকাশে বিশ্বস্ত একটি অনলাইন পোর্টাল 'দৈনিক তরঙ্গ বার্তা'