সরিষাবাড়ী পৌর কার্যালয়ে তালা ঝুলিয়ে দিলেন পৌর পরিচ্ছন্ন কর্মীরা

এসময় পৌরসভার সকল কাউন্সিলরবৃন্দ উপস্থিত থেকে পরিচ্ছন্ন কর্মীদের বিক্ষোভ মিছিলকে সমর্থন জানান

জামালপুরের সরিষাবাড়ী পৌরসভার চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারীরা বেতন বকেয়ার দাবিতে পৌরসভার সম্মুখে বিক্ষোভ মিছিল করেন এবং পৌর মেয়র ও সচিবসহ হিসাবরক্ষকের রুমে তালা ঝুলিয়ে দিয়েছেন পরিচ্ছন্ন কর্মীরা।

রবিবার (৬ সেপ্টেম্বর) দুপুরে পৌর কার্যালয়ের সম্মুখে এই বিক্ষোভ মিছিলটি অনুষ্ঠিত হয়। এসময় পৌরসভার সকল কাউন্সিলরবৃন্দ উপস্থিত থেকে পরিচ্ছন্ন কর্মীদের বিক্ষোভ মিছিলকে সমর্থন জানান এবং পৌর পরিষদের পক্ষ থেকে প্যানেল মেয়র-১ মোহাম্মদ আলী বলেন, মেয়র রোকনুজ্জামান রুকন দীর্ঘদিন যাবৎ সরিষাবাড়ী পৌরসভায় সীমাহীন দুর্নীতি, লুটপাট ও ক্ষমতার অপব্যবহার করার হেতুতে পৌর পরিষৎ নানান সমস্যার সম্মুখীন হন। যার প্রেক্ষিতে পৌর কাউন্সিলরবৃন্দ অনাস্থা ঘোষণা করেন মেয়রের বিরুদ্ধে। সেই হতে মেয়র রোকনুজ্জামান রুকন নানান অপতৎপরতায় লিপ্ত থেকে পৌরসভাস্থ ভাস্কর্য ভাংচুর ও মাননীয় তথ্যপ্রতিমন্ত্রীর বিরুদ্ধে মানহানিকর কুরুচিপূর্ণ ফেসবুক স্ট্যাটাস ও লাইভে বক্তব্য প্রদান করেন। যার দরুণ সরিষাবাড়ী উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সদস্য ছামিউল খান ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করেন। অপর দিকে ভাস্কর্য ভাংচুরের দায়ে আরেকটি মামলা হয় সরিষাবাড়ী থানায়।

এমতবস্থায় ১৫ মে সরিষাবাড়ী পৌরসভাস্থ সকল কার্যাদি অসমাপ্ত রেখে পালিয়ে যান পৌর মেয়র রোকনুজ্জামান রুকন। বর্তমানে পৌর পরিষদের প্রথম শ্রেণী হতে চতুর্থ শ্রেণী কর্মকতা কর্মচারীদের ৩/১৮ মাসে বেতনাদি বকেয়া। এদিকে করোনা ও চার দফা বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত বেতনহীন পরিচ্ছন্ন কর্মীরা দিশেহারা হয়ে বিক্ষোভ মিছিল করেন এবং পৌর কার্যালয়ে ঝুলিয়ে দেন তালা এবং বেতনাদি না পাওয়া পর্যন্ত তারা কোন কাজে যাবেন না ও তালা খুলে দিবেন না বলে জানান বিক্ষোভকারী সাজন সিং।সরেজমিন দেখা যায়, পৌর কার্যালয়ের সম্মুখে বিভিন্ন ওয়ার্ড হতে আসা পৌর নাগরিকের ভিড়। কেউ ট্রেড লাইসেন্স, কেউ নাগরিকত্ব সনদ ও জন্ম সনদ ইত্যাদি নিতে এসেছেন বলে জানান। কিন্তু মেয়র কে না পেয়ে তাঁরা ফিরে যাচ্ছেন হতশায় দিশেহারা হয়ে।

"স্বাধীনতার মহান স্থপতির এক (০১) আদর্শের" তত্ত্বীয় গবেষণাগার কর্তৃক সত্য প্রকাশে বিশ্বস্ত একটি অনলাইন পোর্টাল 'দৈনিক তরঙ্গ বার্তা'