করোনার ডরে মানবতা কাঁদে আজ বিশ্বজুড়ে

মৃত্যুর মত অপূর্ব সুন্দর আর কোন বাস্তবতা নেই এই পৃথিবীতে। তবুও যেন সৃষ্টির শ্রেষ্ঠ মানুুষ এই চরম সত্যটাকে ভুলে গিয়ে মানবতার সম্প্রীতিতে বাঁধে ঘর আর সৃষ্টি করে আত্মিক সম্পর্কে মায়ার বন্ধন। যে বন্ধনের টানে ভুলতে পারেনা একে অপরের সহমর্মিতা। কিন্তু আজ এমন এক অদৃশ্য জীবাণু পৃথিবীতে এসেছে, যার সংক্রমণের ডরে ভুলে যেতে বসেছে মা সন্তানের মমত্ববোধ, স্বামী স্ত্রীর মধুমিতা সম্পর্ক, ভাই-বোনের আত্মিক ভালবাসা। আজ যেন সবাই “চাচা আপন প্রাণ বাঁচা”এই প্রবাদবাক্যটিকে রীতিমত লালন করতে শুরু করেছে সামাজিক দূরত্ব সৃষ্টি করে মানবতা ভুলে। কি নিদারুণ বাস্তবতা। বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) নামক এই প্রাণঘাতী শব্দটি কতটুকু ভয়ঙ্কর ঘৃণিত একটি নাম। তার বাস্তবিকরূপ উপলব্ধি করতে পেরেছে সেই ব্যক্তি যে পীড়িত অতঃপর যার পরিবার এই ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছে।

সম্প্রতি জামালপুরের সরিষাবাড়ী পৌরসভাস্থ ৫নং ওয়ার্ডের কুমলিবাড়ী গ্রামের মৃত তয়েজ উদ্দিন মন্ডলের ছেলে আঃ হক জানান তার পিতা করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন। কিন্তু তিনি ছিলেন এ্যাজমা রোগী। দীর্ঘদিন যাবৎ শ্বাস কষ্টে ভোগ ছিলেন। হঠাৎ তার শ্বাসকষ্ট বেড়ে যাওয়ায় তাকে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হয় সরিষাবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। সেখানে কর্তব্যরত ডাক্তার তার করোনা পরীক্ষার জন্য ২৫ জুন নমুনা পাঠান জামালপুর শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এবং ২৯ জুন করোনায় আক্রান্ত বলে পজেটিভ রিপোর্ট আসে। ঠিক সেইদিন, সেই মুহূর্ত থেকে শুরু হয় তাদের পরিবারের সকলকে উদ্দেশ্য করে নানান সমালোচনা। সমাজের ও প্রশাসনিক লোকজন লকডাউন করে দেয় তাদের ঘরবাড়ী ও বাহিরে চলাফেরা। বন্ধ হয়ে যায় কর্মস্থল ব্যবসাবাণিজ্য। কেউ আর ভালো দৃষ্টিতে দেখেনা তাদেরকে এবং কোন সম্পর্কও রাখেনা তাদের সাথে। কথাবার্তা চলাফেরা বন্ধ করে দেয় পাড়াপড়শীরা। এ যেন এক বিভীষিকাময় জীবনযাপন। তাদেরকে দেখলে দূর দিয়ে পাশ কাটিয়ে চলে যায় এলাকার লোকজন। যেন কুকুরের চেয়েও ঘৃণিত দৃষ্টিতে দেখেন প্রতিবেশীরা বলে জানান করোনা আক্রান্ত পরিবারের মানুষগুলো। অবহেলা আর ঘৃণারপাত্র আঃ হক বলেন, গতকাল আর আজকের দিনের মধ্যে সামাজিকতা আর আন্তরিকতার কতটুকু পার্থক্য সেটা আমি মর্মে মর্মে উপলব্ধি করছি এই করোনা নামক দানবের কারণে। আজ আমি বুঝতে পেরেছি, হাশরের দিন কত কঠিন হবে। কত ভয়ঙ্কর হবে একে অপরের পরিচয়। সামান্য এই জীবাণুর ডরেই যদি মানুষ ভুলে যেতে পারে আত্মিক সম্পর্ক আর আন্তরিকতা ও মানবতার মূল্যবোধ। তাহলে কত কঠিন হবে হাশরের সেইদিন। আমাদের ভাবা উচিত স্রষ্টার পরিচয় কিন্তু মানুষ দিয়েই।

"স্বাধীনতার মহান স্থপতির এক (০১) আদর্শের" তত্ত্বীয় গবেষণাগার কর্তৃক সত্য প্রকাশে বিশ্বস্ত একটি অনলাইন পোর্টাল 'দৈনিক তরঙ্গ বার্তা'