গাংনীর একজন ডাক্তার করোনা আক্রান্ত ও একজনের করোনায় মৃত্যু

মেহেরপুরে গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য সহকারি ফারহানা ইয়াসমিন শাশুড়ি জোবাইদা খাতুন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু বরণ করেছেন এবং জোবাইদা খাতুনকে চিকিৎসা দেওয়া ডাক্তার আব্দুল আল মামুন করোনায় আক্রান্ত।

গত মঙ্গলবার সকালে গাংনী পশু হাসপাতাল পাড়ার আব্দুল গনির স্ত্রী জোবাইদা খাতুন (৭২) তার নিজ বাড়িতে করোনা উপসর্গ মারা যান।

জানাযায়,আক্রান্ত ডাক্তার মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালের ইমাজেন্স মেডিকেল অফিসার হিসাবে কর্মরত ছিলেন। এবং তিনি গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য সহকারি ফারহানা ইয়াসমিন শাশুড়ি জোবাইদা খাতুনকে চিকিৎসা করেছিলেন। বর্তমানে ডা. আব্দুল আল মামুন নড়াইলে অবস্থান করছেন।

বুধবার রাতে মেহেরপুর সিভিল সার্জন ডাক্তার নাসির উদ্দিন জানান, করোনা ভাইরাস সন্দেহে সোয়াব পরীক্ষার জন্য যে নমুনা পাঠানো হয়েছিল তার মধ্যে আরো ২৪ জনের রিপোর্ট এসেছে যার ২টি পজিটিভ বাকি ২২জনের নেগেটিভ । নতুন পজিটিভ ১টি মেহেরপুর সদরের অপরটি গাংনীর ( মৃত) । এ সকল রিপোর্ট কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল দেওয়া হয়।

এ নিয়ে মেহেরপুর জেলায় ২ হাজার ১৫ জনের মধ্যে ৯৭ টি পজেটিভ এর মধ্যে ৩৮ জন সুস্থ হয়েছে। মৃত্যুবরণ করেছে ৬ জন। এছাড়াও গাংনী বাজারের পশু হাসপাতাল পাড়ার জহুরুল ইসলাম বাচ্চু’র স্ত্রী ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য সহকারি ফারহানা ইয়াসমিন ৩ জুলাই, শুক্রবার প্রথমে করোনা আক্রান্ত হয়। পরে গতকাল সোমবার তার মেয়ে নুসরাত জাহান, ও দেবর আখতারুজ্জামান চঞ্চল আক্রান্ত হলে শাশুড়ি জোবাইদা খাতুনের নমুনা সংগ্রহের জন্য গেলেও তা দিতে রাজি হননি তিনি। পরে মঙ্গলবার সকালে সর্দি,কাশি ও হালকা জ্বর উপসর্গ নিয়ে তার মৃত্যু হয়।

"স্বাধীনতার মহান স্থপতির এক (০১) আদর্শের" তত্ত্বীয় গবেষণাগার কর্তৃক সত্য প্রকাশে বিশ্বস্ত একটি অনলাইন পোর্টাল 'দৈনিক তরঙ্গ বার্তা'