মেস মালিকদের স্বৈরাচারী আচরণে ছাত্রসমাজের বিবেককে নাড়া দিয়েছেঃ কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবণ

রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ছাত্রাবাস ও মেস থেকে শিক্ষার্থীদের সনদ ও মালামাল ফেলে দেওয়ার সঙ্গে জড়িতদের ‘অমানবিক’ আখ্যা দিয়ে তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছে ছাত্রদল। আজ রোববার (৫ জুলাই) দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে আয়োজিত এক মানববন্ধনে এ দাবি জানানো হয়। এসময় করোনাকালে শিক্ষার্থীদের প্রতি মানবিক আচরণ করতে সরকারসহ সংশ্লিষ্ট সবার প্রতি আহবান জানান তারা।

সংগঠনের সিনিয়র সহ-সভাপতি কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবণ বলেন, রাষ্ট্র যখন সবাইকে মানবিক হওয়ার জন্য অনুরোধ করছে, তখন বিভিন্ন বাসা-বাড়ি, মেসে থাকা শিক্ষার্থীদের জীবন হয়ে পড়েছে দূর্বিসহ। মালিকদের স্বৈরাচারী আচারণ ছাত্রসমাজের বিবেককে নাড়া দিয়েছে। ছাত্রদল ছাত্রসমাজের প্রতিনিধি হিসেবে এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

মানববন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন, সহ-সভাপতি আশরাফুল আলম ফকির লিংকন, হাফিজুর রহমান হাফিজ, মাজেদুল ইসলাম রুম্মন, কে এস এম মোসাব্বির সাফি, মোক্তাদির হোসেন তরু, সাজিদ হাসান বাবু, মিজানুর রহমান সজিব, সিনিয়র যুগ্ম-সম্পাদক আমিনুর রহমান আমিন, মহিন উদ্দিন রাজু, তানজীল হাসান, এবি এম মাহমুদ সর্দার, আরিফুর রহমান, আব্দুল্লাহ আল জুবায়ের বাবু, মারুফ এলাহি রনি, সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল, সহ-সাধারণ সম্পাদক মাইনুদ্দিন নিলয়, আক্তারুজ্জামান আকতার, জামিল হোসেন, আলাউদ্দিন খান, সুলতানা জেসমিন জুই, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের আহবায়ক রাকিবুল ইসলাম রাকিব, সদস্য সচিব আমন উল্লাহ আমান, যুগ্ম আহবায়ক – আকতার হোসেন যুগ্ম আহবায়ক জহির রায়হান আহমেদ, যুগ্ম আহবায়ক নাসির উদ্দিন, যুগ্ম আহবায়ক আশরাফুল ইসলাম অনিক ছাড়া্র সহ-যুগ্ম আহবায়ক, আহবায়ক সদস্য এবং বিভিন্ন হল কমিটির সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক।

"স্বাধীনতার মহান স্থপতির এক (০১) আদর্শের" তত্ত্বীয় গবেষণাগার কর্তৃক সত্য প্রকাশে বিশ্বস্ত একটি অনলাইন পোর্টাল 'দৈনিক তরঙ্গ বার্তা'